Mirza Ghalib Indian poet

কথায় কথায় তু‌মি জি‌জ্ঞেস ক‌রো যে, “তু‌মি কে?”
আচ্ছা তু‌মিই ব‌লো; এটা কো‌নো কথা বলার ধরণ হ‌লো?
না অ‌গ্নি শিখায় আ‌ছে এ ম‌হিমা; আর না বজ্রে আ‌ছে এ ম‌নোহা‌রিতা ,
কেউ তো ব‌লো যে, এই চোখ ধাঁধা‌নো সৌন্দর্য কার ?
আমি মো‌টেও শ‌ঙ্কিত নই যে, শত্রু তোমা‌কে প্ররো‌চিত কর‌বে;
বরঞ্চ আ‌মি এ জন‌্যই ঈর্ষা‌ন্বিত যে, সে তোমার সা‌থে বাক‌্যালাপ কর‌বে।
কাপড় এঁ‌টে আ‌ছে আমার রক্তসিক্ত বদ‌নে;
আমার প‌কে‌টের রিফু করারই বা প্রয়োজন কী?
দে‌হের সা‌থে সা‌থে হয়‌তো-বা আত্মাটাও ভ‌স্মীভূত হ‌য়ে গে‌ছে;
এখন ছাঁই থে‌কে তু‌মি কী-ই বা তালাশ ক‌রো?
নিছক শীরায় প্রবা‌হিত হওয়া‌কে আ‌মি রক্ত আখ‌্যা দি‌তে নারাজ;
য‌দি আঁ‌খি বে‌য়ে না টপকা‌লো ত‌বে তা রক্ত হয় কী ক‌রে?
যে বস্তুর জন‌্য জান্না‌ত লা‌ভে আমরা অত‌্যুৎসুক;
সে সুঘ্রাণ সমৃদ্ধ শরাবই য‌দি না থা‌কে; ত‌বে জান্না‌তেরই বা মূল‌্য কী?
য‌দি না শরাব তৃ‌প্তিভ‌রে আকণ্ঠ পান কর‌তে না পারলাম;
ত‌বে হ‌রেক রক‌মের পানপা‌ত্রেরই বা প্রয়োজন কী?
(নেশার ঘো‌রে) কথা বলার হুশ না থাকুক, য‌দি থা‌কেও
তথা‌পি কো‌ন আশায় বল‌বো যে, আমার আ‌র্জি কী?
বাদশা‌হের খোশামুদে হওয়ায় গা‌লি‌বের যা আভ্রু;
অন‌্যথায় লোকাল‌য়ে গা‌লি‌বের চা‌হিদাই বা কী?

কবি পরিচিতি:
মূল: মির্জা গালিব
তর্জমা: কাহি মোহাম্মদ শাহিন রেজা
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
আরবি বিভাগ

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.