Zarb e Kaleem by Allama Iqbal

লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ

খুদীর গােপন রহস্য লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ
খুদী তরবারি শানপ্রস্তর তার লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ।
এ যুগ সন্ধানে ফেরে তার ইবরাহীমের
সারাটা দুনিয়া হলো বুতখানা লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ।
সওদা করেছাে তুমি আত্ম-অহংকারের,
লাভ-ক্ষতির প্রবঞ্চনা লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ।
পার্থিব ধন-সম্পদ এই সম্পর্ক আত্মীয়তা,
সন্দেহ-সংশয়ের বুত এরা লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ।
স্থান-কালের উপবীত হয়েছে প্রজ্ঞা,
অথচ স্থান-কাল অস্তিত্বহীন,
লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ ।
গুল ও লালা’র ঋতুর মুখাপেক্ষী নয় এ গীত,
শীত ও বসন্ত সবেতেই লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ।
জামাতের আস্তিনে যদিও মূর্তি সংগােপনে
রয়েছে লুকিয়ে,
প্রচারের নির্দেশ তবু আমার প্রতি,
লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ।

প্রভাত

যে প্রভাতের উন্মেষ আজ
অথবা আগামী দিনে
উৎস তার প্রচ্ছন্ন আমার দৃষ্টিতে,
সৃষ্টির শয়নকক্ষ কেঁপে ওঠে
যে প্রভাতের প্রচন্ড আঘাতে
জন্ম তার মুমিনের আজান ধ্বনিতে ।

তকদীর নির্ভরতা

এ কুরআনের শিক্ষা দেখি আজ সংসার বৈরাগ্য।
মুমিনকে করলাে যে চন্দ্র ও সপ্তর্ষিমন্ডলের প্রভূ।
তকদীরমুখী আজ তাদের সমস্ত কাজের ধারা,
যাদের সংকল্পে নিহিত ছিল আল্লাহর তকদীর।
একদা মন্দ ছিল যা ধীরে ধীরে তা-ই হলাে ভালাে।
কেননা দাসত্বে বদলে যায় জাতির বিবেক।

মিʼরাজ

প্রেমের ব্যাকুলতা যে রেণুকে দেয় উড়বার আনন্দ-স্বাদ,
চন্দ্র ও সূর্যকে বিধ্বস্ত করতে পারে সে।
বাজপাখির সংগ্রাম হে বন্ধু মােটেই কঠিন নয়,
তিতির পাখির প্রাণ যদি পায় উষ্ণতার পরশ।
মুসলিম তীর যেন,
লক্ষ তার সপ্তর্ষির প্রাণ
প্রাণের গভীরে ঢাকা
এ মি’রাজ শুধু এক তত্ত্ব মহান।
‘আননজম’ সূরার অর্থ বােঝনি তুমি,
তাতে আশ্চর্য কি
তােমার জোয়ার-ভাটা তাইতাে আজো চন্দ্রের মুখাপেক্ষী।

এক দর্শন বিভ্রান্ত সাইয়িদজাদার নামে

না হারাতে নিজ সত্তা তুমি
হতে না বের্গসঁর উপবীত,
হেগেলের শুক্তি মুক্তোশূন্য
যাদু তার কল্পনায় বুঁদ।
জীবন শক্তিশালী হয় কিভাবে ,
খুদী কিভাবে হয় চিরন্তন।
মানুষ চায় জীবনের স্থায়িত্ব ,
চায় এক জীবন পদ্ধতি-
পৃথিবীর রাত্রির আঁধার যে করে উজ্জ্বল,
মুমিনের আজান সেই বিশ্বের জাগরণী গান। মূলে আমি সােমনাতপন্থী ,
ছিলেন পূর্ব পুরুষ লাত-মানাতের পূজারী,
তুমি হাশেমী সাইয়িদ খান্দানের আউলাদ।
আর আমার শিরায় প্রবাহিত ব্রাহ্মণের রক্ত,
দর্শন আমার পানি ও মৃত্তিকায় মেশানাে
আর আমার দিলের সূক্ষ্ম তারে ঝংকৃত।
ইকবাল নির্গূণ হলেও
খবর রাখে প্রতিটি মূৰ্ছনার,
উষ্ণতা নেই তােমার প্রেমের শিখায়,
হৃদয় বিমুগ্ধকারী তত্ত্ব শেখাে আমার কাছেঃ
প্রজ্ঞার পরিণতি হলো অনুপস্থিতি
দর্শন হলাে জীবন থেকে দূরে সরে যাওয়া,
চিন্তার তন্ত্রী যখন সুরশূন্য হয়।
কর্মপ্রবণতায় নামে মৃত্যুর শীতলতা ।

দীন হলাে জীবন পদ্ধতির দিন পঞ্জিকা,
দীন হলাে মুহম্মদ ও ইবরাহীমের রহস্য ।
মুহম্মদের কথায় হৃদয় বন্ধ করাে
হে আলীর সন্তান !
বু আলী কলন্দরের পথ থেকে সরে থাকবে কতদিন ?
পথ দেখার চোখ থেকে বঞ্চিত যখন তুমি,
তখন কুরাইশ নেতা বুখারার নায়কের চেয়ে উত্তম।

পৃথিবী ও আকাশ

তুমি যাকে বসন্তকাল মনে করাে।
অন্যের চোখে তা হতে পারে পাতা ঝরা শীত মওসুম
কালের পরিবর্তন নিয়ত প্রতিটি মুহূর্তে।
হে সত্য সন্ধানী,
লাভ-ক্ষতির হিশেব করাে না !
হতে পারে তা আরেক পৃথিবীর জমীন ।
যাকে তুমি মনে করাে আকাশ আপন পৃথিবীর।

মুসলিমের পতন

যদিও অর্থ পূর্ণ করে এ জগতে সব প্রয়ােজন।
ধনাঢ্যতায় হয় না হাসিল যা হয় ফকিরীতে,
যৌবনসিক্ত হয় যদি আমার জাতির সাহস ও আত্মমর্যাদা
ফকিরী আমার কম নয় কিছু বাদশাহী হতে।
কারণ আসলে অন্য কিছু,
তুমিও তা বুঝেছাে ।
মুমিনের পতনের কারণ অভাব ও দারিদ্র নয়,
পৃথিবীতে আমার প্রতিভার বিকাশ হয়ে থাকে যদি হয়েছে ফকিরীর পথে,
বিত্তশালিতার পথে নয়।

যরবে কলীম
আল্লামা ইকবাল
তর্জমা- আবদুল মান্নান তালিব

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.