Asrar e khudi -Allama Iqbal(The Secrets of the Self)

(আত্মার জীবন সংগ্রহীত হয় আদর্শ গঠন আর তাকে জন্ম দেবার ভেতর থেকে)

জীবন সংরক্ষিত হয় উদ্দেশ্য দ্বারা,
কাফেলার বাঁশি বাজে অবিরাম
গন্তব্যপথের সীমানায় পৌছবার জন্য।
চাওয়ার মাঝেই মানুষের জীবন,
উৎস-মূল তার লুক্কায়িত আকাঙ্ক্ষার ভিতরে।
আকাঙ্ক্ষাকে রাখো জীবন্ত করে।
তোমার অন্তরতলে,
পাছে তোমার ক্ষুদ্র ধূলিকণা
পরিণত হয়।
সমাধি-মৃত্তিকায়।

এই গন্ধ-বর্ণে-ভরা বিশ্বের আত্মাই হল
অন্তরের আকাঙ্ক্ষা,
আকাঙ্ক্ষার বাস-ভূমি
লুক্কায়িত প্রতি পদার্থের প্রকৃতিতে।
আকাঙ্ক্ষা নৃত্যপর করে তোলে ।
বক্ষোমধ্যে হৃদপিণ্ডকে,
ঔজ্জ্বল্য তার জ্যোতিষ্মান করে তোলে বক্ষকে
দর্পণের মতো।

বিশ্বকে সে দান করে শক্তি।
উধ্বমুখে উথানের!
মুসার অনুভূতির কাছে
সে হল খিজরের মতো !
অন্তর আহরণ করে তার জীবন
এই আকাঙ্ক্ষার অগ্নি থেকে,
যখন সে পায় জীবন,
তখনই মৃত্যু হয় সবকিছুর
যা’ অসত্য।

যখন তার আকাক্ষা সৃষ্টিতে
সে হয় বিরত
ভগ্ন হ’য়ে যায় তার পক্ষ,
করতে পারে না সে উত্থান।
আকাঙ্ক্ষা আত্মাকে রাখে চিরজাগ্রত,
সে হচ্ছে অশান্ত-চঞ্চল তরঙ্গ
আত্মার মহাসমুদ্রে।

আকাঙ্ক্ষা একটি ফাঁদ
আদর্শকে ধরে রাখবার,
কর্মগ্রন্থকে বেঁধে রাখবার যন্ত্র।
আকাঙ্ক্ষার অপলাপ
নির্মম মৃত্যু
জীবন্তের কাছে,
যেমন উত্তাপের অভাব
নির্বাপিত করে অগ্নিশিখা ।

কোথায় আমাদের জাগ্রত চক্ষুর উৎসমুখ?
আমাদের দর্শনের আনন্দ
নিয়েছে দৃশ্যমান রূপ।
তিতির পক্ষীর পদযুগ জন্ম নিয়েছে
তার চলার অপরূপ ভঙ্গি থেকে,
বুলবুলের চঞ্চু তার সঙ্গীতের আনন্দ থেকে।
নল তখনই হয়েছে সুখী,
যখন সে পরিত্যাগ করেছে।
তার জন্মভূমি
নলবন;
তখনই কারামুক্ত হয়েছে তার সঙ্গীত
যা’ ছিল বন্দি।

সেই অন্তরের অন্তঃসার কী-
যে সন্ধান করে ফেরে নব নব আবিষ্কারকে,
উত্থান করতে চায় ঊর্ধ্বলোকে ?
জানো তুমি- কোথায় এ রহস্যের কারণ ?
সে হল আকাঙ্ক্ষা, যে জীবনকে করে ঐশ্বর্যশালী,
মন তার গর্ভের সন্তান।
সমাজের গঠন,
তার রীতি আর আইন-কানুন কী?
কী এই বিজ্ঞানের অপূর্ব শক্তির রহস্য?

একটি আকাঙ্ক্ষা তার নিজের শক্তিতে
হৃদয়ঙ্গম করেছিল নিজকে,
অন্তর বিদীর্ণ করে বাইরে এসে সে
পরিগ্রহণ করেছিল রূপ।

নাক, হাত, মস্তিষ্ক, চক্ষু এবং কর্ণ,
চিন্তা, কল্পনা, ভাব, স্মৃতি এবং বোধ
সবকিছুই অস্ত্র জীবনের আবিষ্কার
আত্মসংরক্ষণের জন্য ।
তার বিরামহীন সংগ্রামে।

বিজ্ঞান ও কলার লক্ষ্য নয় জ্ঞান,
বাগিচার লক্ষ্য নয়
কুঁড়ি আর ফুল !

বিজ্ঞান হল একটি যন্ত্র আত্মসংরক্ষণের,
বিজ্ঞান একটি পন্থা।
আত্মাকে শক্তিশালী করবার।
বিজ্ঞান ও কলা জীবনের ভৃত্য,
যে ভৃত্য জন্ম নিয়েছে ও পালিত হয়েছে।
তার আপন গৃহে !

জাগ্রত হও,
ওগো যারা জীবন-রহস্যের কাছে অপরিচিত,
আদর্শের সুরা-রসে প্রমত্ত হয়ে ওঠো জেগে ;
আদর্শ-পূর্বাশার আলোকে সমুজ্জ্বল,
প্রজ্জ্বলিত অগ্নি আল্লাহ ব্যতীত সকলের কাছে,
যে আদর্শ স্বর্গের চেয়ে উচ্চতর,
যে জয় করবে মুগ্ধ করবে, জাদু করবে
মানুষের আত্মাকে ;
প্রাচীন মিথ্যার যে ধ্বংসকারী ;
যে সংক্ষোভে পরিপূর্ণ,
রোজ কেয়ামতের প্রতিরূপ।

বেঁচে আছি আমরা আদর্শ গঠন দ্বারা,
উজ্জ্বল হয়ে আছি আমরা।
আদর্শের সূর্যালোকে।

তথ্য সূত্র: আসরারে খুদী- আল্লামা ইকবাল
তর্জমা-সৈয়দ আবদুল মান্নান (১৯৪৫) দ্বিতীয় ছাপা

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.